//
প্রশংসা আগে উল্লেখ করার কারণ

যেহেতু বান্দা প্রথমে আল্লাহ্‌র প্রশংসা করেছে এবং তাঁর গুণাবলী বর্ণনা করেছে, সেহেতু এখন তার কর্তব্য হবে নিজের প্রয়োজন পূরণের জন্য আল্লাহ্‌র নিকট প্রার্থনা করা। যেমন পূর্বেই হাদীস বর্ণিত হয়েছে যে, আল্লাহ্‌ বলেছেন,

«فَنِصْفُهَا لِي وَنِصْفُهَا لِعَبْدِي، وَلِعَبْدِي مَا سَأَلَ»

(‘অর্ধেক অংশ আমার বান্দার এবং আমার বান্দার জন্যে তাই রয়েছে যা সে চাইবে।’)

আল্লাহ্‌র কাছে সাহায্য চাওয়ার এটাই সর্বোত্তম পন্থা। প্রথমে মহান আল্লাহ্‌ পাকের যথোপযুক্ত প্রশংসা ও গুণকীর্তন,
অতঃপর নিজের ও মুসলিম ভাইদের প্রয়োজন পূরণের জন্য দু’আ করা। আর তা হচ্ছে,

﴿اهْدِنَا الصِّرَاطَ الْمُسْتَقِيمَ ﴾

(৬. আমাদের সরল পথে পরিচালিত করুন।)

দোয়ার কল্যাণে ভাল ফলাফলের আশায় এটাই সবচেয়ে উপযুক্ত ও কার্যকরী পন্থা। আর একারণেই এটা আল্লাহ নিজেই আমাদের জন্য পছন্দ করে বলে দিয়েছেন।

কখনও কখনও সাহায্য চাওয়ার সময় সাহায্য প্রার্থনাকারী নিজের অবস্থা ও প্রয়োজন প্রকাশ করে থাকে। যেমন মূসা নাবী (আ) বলেছিলেন,

﴿رَبِّ إِنِّى لِمَآ أَنزَلْتَ إِلَىَّ مِنْ خَيْرٍ فَقِيرٌ﴾

(আমার প্রভু! যে অনুগ্রহই তুমি আমার প্রতি করবে আমি তা-ই চাই) (২৮:২৪)

অনেক ক্ষেত্রে সাহায্য প্রার্থনাকারী যার কাছে সাহায্য চাওয়া হয়, প্রথমে তাঁর গুণাগুণ বর্ণনা করে থাকে, যেমন যুন-নুন (নাবী ইউনুস) বলেছিল,

﴿لاَّ إِلَـهَ إِلاَّ أَنتَ سُبْحَـنَكَ إِنِّى كُنتُ مِنَ الظَّـلِمِينَ﴾

(লা ইলাহা ইল্লা আন্তা [আপনি (আল্লাহ) ছাড়া আর কেউ উপাসনার যোগ্য নয়], [তারা যা কিছু আপনার সাথে শরীক করে তা থেকে] আপনি পবিত্র, মহান! নিশ্চয় আমিতো দুষ্কৃতিকারী।) (২১:৮৭)

এই সূরায় উল্লেখিত পথপ্রদর্শনের অর্থ হচ্ছে, সফলতার পথের দিকে পরিচালিত হওয়া। আল্লাহ বলেছেন,

﴿اهْدِنَا الصِّرَاطَ الْمُسْتَقِيمَ ﴾

(আমাদের সরল পথে পরিচালিত করুন) অর্থাৎ আমাদেরকে সঠিক দিকনির্দেশনা দেন, এবং সেই পথেই আমাদের নিয়ে যান। আবার যেমন,

﴿وَهَدَيْنَـهُ النَّجْدَينِ ﴾

(আমি কী তাদেরকে (ভাল ও মন্দ) দু’টি পথই দেখাইনি?) (৯০:১০), এর মানে হচ্ছে,’ আমি তাকে ভাল ও মন্দ দুটি পথই ব্যাখ্যা করেছি।’ আল্লাহ বলেছেন,

﴿اجْتَبَـهُ وَهَدَاهُ إِلَى صِرَطٍ مُّسْتَقِيمٍ﴾

(তিনি [আল্লাহ] তাকে [ইব্রাহীম অন্তরঙ্গ বন্ধু হিসেবে] মনোনিত করেছিলেন এবং তাকে সরল পথে পরিচালিত করেছিলেন।) (১৬:১২১)

﴿فَاهْدُوهُمْ إِلَى صِرَطِ الْجَحِيمِ﴾

(এবং তাদেরকে জলন্ত আগুন (নরকে)র দিকে নিয়ে যাও। (৩৭:২৩) অনুরূপ আল্লাহ আরও বলেছেন,

﴿وَإِنَّكَ لَتَهْدِى إِلَى صِرَطٍ مُّسْتَقِيمٍ﴾

(আর নিশ্চয় (হে মুহাম্মাদ صلى الله عليه وسلم) তুমি (মানবজাতিকে) সরল পথ প্রদর্শন করছ। (৪২:৫২), এবং

﴿الْحَمْدُ لِلَّهِ الَّذِى هَدَانَا لِهَـذَا﴾

সকল প্রশংসা ও ধন্যবাদ আল্লাহ্‌র জন্যে যিনি আমাদেরকে এই পথ প্রদর্শন করেছেন। (৭:৪৩) অর্থাৎ পথ প্রদর্শন করে এই দিকে নিয়ে এসেছেন, এবং স্বর্গের জন্য আমাদের যোগ্য করেছেন।

< পূর্বের পৃষ্ঠা ▬▬▬▬▬  পরের পৃষ্ঠা >

আলোচনা

কোন মন্তব্য নেই এখনও

মন্তব্য করুন...

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: