//
ইস্তি’আয্বাহ (আশ্রয় প্রার্থনা করা)র তাফসীর

আল্লাহ্‌ বলেছেন,

خُذِ الْعَفْوَ وَأْمُرْ بِالْعُرْفِ وَأَعْرِض عَنِ الْجَـهِلِين وَإِمَّا يَنَزَغَنَّكَ مِنَ الشَّيْطَـنِ نَزْغٌ فَاسْتَعِذْ بِاللَّهِ إِنَّهُ سَمِيعٌ عَلِيمٌ

তাদের ক্ষমা করো, ভাল কাজের আদেশ দাও, এবং বিচারবুদ্ধিহীন লোকদের এড়িয়ে চল (তাদের শাস্তি দিওনা)। এবং কখনো যদি শাইত্বন এর কাছ থেকে কোন কুমন্ত্রণা আসে, তাহলে আল্লাহ্‌র কাছে সাহায্য চাও। নিশ্চয়ই তিনি সর্বশ্রোতা, সবজান্তা । (৭:১৯৯-২০০)

ادْفَعْ بِالَّتِى هِىَ أَحْسَنُ السَّيِّئَةَ نَحْنُ أَعْلَمُ بِمَا يَصِفُونَ وَقُلْ رَّبِّ أَعُوذُ بِكَ مِنْ هَمَزَاتِ الشَّيـطِين وَأَعُوذُ بِكَ رَبِّ أَن يَحْضُرُونِ

(যা ভালো তা দিয়ে তুমি মন্দ কথার জবাব দাও। ওরা যা বলে সে-সম্বন্ধে আমি ভালো করেই জানি। এবং বলোঃ “হে প্রভু! আমি শাইয়াত্বীনের (শয়তানের) প্ররোচনা থেকে আপনার কাছে আশ্রয় প্রার্থনা করি। এবং আমি আমার নিকট ওদের উপস্থিতি থেকে আপনার আশ্রয় পার্থনা করি।) (২৩:৯৬-৯৮)

এবং

﴿وَلاَ تَسْتَوِى الْحَسَنَةُ وَلاَ السَّيِّئَةُ ادْفَعْ بِالَّتِى هِىَ أَحْسَنُ فَإِذَا الَّذِى بَيْنَكَ وَبَيْنَهُ عَدَاوَةٌ كَأَنَّهُ وَلِىٌّ حَمِيمٌ – وَمَا يُلَقَّاهَا إِلاَّ الَّذِينَ صَبَرُواْ وَمَا يُلَقَّاهَآ إِلاَّ ذُو حَظِّ عَظِيمٍ – وَإِمَّا يَنزَغَنَّكَ مِنَ الشَّيْطَـنِ نَزْغٌ فَاسْتَعِذْ بِاللَّهِ إِنَّهُ هُوَ السَّمِيعُ الْعَلِيمُ ﴾

(ভালো দিয়ে মন্দকে বাধা দাও, এতে তোমার সাথে যার শত্রুতা সে হয়ে যাবে অন্তরঙ্গ বন্ধুর মতো। এ-চরিত্র তাদেরই হয় যারা ধৈর্যশীল, এ-চরিত্র তাদেরই হয় যারা মহাভাগ্যবান যদি শয়তানের কুমন্ত্রণা তোমাকে (হে মুহাম্মাদ) (খারাপ কাজে) উসকানি দেয় তবে তুমি আল্লাহর আশ্রয় প্রার্থনা করো। নিশ্চয় তিনি সব শোনেন, সব জানেন।) (৪১:৩৪-৩৬)। উপরোল্লেখিত এই তিনটি অনুচ্ছেদই কেবল এই অর্থ বহন করে। আল্লাহ্‌ তা’আলা আমাদের আদেশ দিয়েছেন যে, আমরা আমাদের মানুষের শত্রুতার প্রতি কোমল হব, যাতে করে আমাদের কোমলতা তাদেরকে আমাদের বন্ধু ও সহযোগী বানিয়ে নিতে পারে। তিনি আরও আদেশ দিয়েছেন যে, আমরা যেন শয়তানের উসকানি থেকে তাঁর কাছে আশ্রয় চাই, কেননা আমরা যদি দয়া এবং প্রশ্রয় দিয়ে শয়তানের সাথে ব্যবহার করি, এটা তার কুমন্ত্রণা বন্ধ করবেনা। আদম আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর সাথে বিদ্বেষপূর্ণ শত্রুতা এবং তীব্র বিরাগের কারণে শাইতান শুধুমাত্র আদম সন্তানের ধ্বংসই খুঁজে বেড়ায়। আল্লাহ্‌ বলেছেন,

﴿يَـبَنِى آدَمَ لاَ يَفْتِنَنَّكُمُ الشَّيْطَـنُ كَمَآ أَخْرَجَ أَبَوَيْكُم مِّنَ الْجَنَّةِ﴾

হে আদম সন্তান! শাইতান যেন তোমাদের প্রলুব্ধ করতে না পারে, যেভাবে সে তোমাদের পিতা-মাতাকে (আদাম ও হাওয়া’ (ইভ)) স্বর্গ থেকে বের করে দিয়েছে। (৭:২৭),

﴿إِنَّ الشَّيْطَـنَ لَكُمْ عَدُوٌّ فَاتَّخِذُوهُ عَدُوّاً إِنَّمَا يَدْعُو حِزْبَهُ لِيَكُونُواْ مِنْ أَصْحَـبِ السَّعِيرِ ﴾

(অবশ্যই শয়তান তোমাদের শত্রু, তাই তাকে শত্রু হিসেবেই গ্রহণ করো। সে শুধু তার হিযব (অনুসারীদের)কে এজন্যেই আমন্ত্রণ করে, যাতে করে তারা গনগনে আগুনের অধিবাসী হতে পারে।) (৩৫:৬) এবং,

﴿أَفَتَتَّخِذُونَهُ وَذُرِّيَّتَهُ أَوْلِيَآءَ مِن دُونِى وَهُمْ لَكُمْ عَدُوٌّ بِئْسَ لِلظَّـلِمِينَ بَدَلاً﴾

(তবে কী তোমরা আমাকে রেখে তাকে (ইবলিস) ও তার বংশধরকে তোমাদের রক্ষাকর্তা এবং সাহায্যকারীরূপে গ্রহণ করছো? অথচ এরা তো তোমাদের শত্রু। কত নিকৃষ্ট বিনিময় যলিমুনদের (মূর্তিপূজক, পথভ্রষ্ট ইত্যাদি) জন্য।) (১৮:৫০)

শয়তান আদম আলাইহি ওয়া সাল্লামকে আশ্বস্ত করেছিল যে সে তাকে পরামর্শ দিতে চায়, কিন্তু সে আসলে মিথ্যা বলছিল। অতএব, সে কিভাবে আমাদের সাথে সদাচরণ করতে পারে,

﴿فَبِعِزَّتِكَ لأغْوِيَنَّهُمْ أَجْمَعِينَإِلاَّ عِبَادَكَ مِنْهُمُ الْمُخْلَصِينَ ﴾

(আপনার ক্ষমতার শপথ, আমি অবশ্যই তাদের সবাইকে ভুল পথে পরিচালিত করব। তবে তাদের মধ্যে যারা একনিষ্ঠ বান্দা তাদের ছাড়া (অর্থাৎ যারা ইসলামিক একেশ্বরবাদ এর প্রতি নিষ্ঠাবান, অনুগত ও বিশ্বাসী)।) (৩৮:৮২-৮৩)

আল্লাহ্‌ তা’আলা আরও বলেছেন,

﴿فَإِذَا قَرَأْتَ الْقُرْءَانَ فَاسْتَعِذْ بِاللَّهِ مِنَ الشَّيْطَـنِ الرَّجِيمِ ﴾

﴿إِنَّهُ لَيْسَ لَهُ سُلْطَانٌ عَلَى الَّذِينَ ءَامَنُواْ وَعَلَى رَبِّهِمْ يَتَوَكَّلُونَ – إِنَّمَا سُلْطَـنُهُ عَلَى الَّذِينَ يَتَوَلَّوْنَهُ وَالَّذِينَ هُم بِهِ مُشْرِكُونَ ﴾

সুতরাং যখন তোমরা কুর’আন আবৃত্তি করবে, আল্লাহ্‌র কাছে নির্বাসিত (অভিশপ্ত) শাইত্বন থেকে আশ্রয় চাও। নিশ্চয়ই যারা আল্লাহ্‌র উপর বিশ্বাস স্থাপন করে, তাদের উপর তার কোন প্রভাব নাই। তার প্রভাব শুধু তাদের উপরই যারা তাকে (শয়তান) অনুসরণ করে, এবং যারা তাঁর (আল্লাহ্‌) সাথে অংশীদার শরিক করে। (১৬:৯৮-১০০)

<< পূর্বের পৃষ্ঠা ▬▬▬▬▬ পরের পৃষ্ঠা >>

আলোচনা

কোন মন্তব্য নেই এখনও

মন্তব্য করুন...

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: